November 27, 2022
Monday, 02 December 2019 04:39

নবীগঞ্জে প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে পন্ড ॥ বরসহ বরযাত্রীর পলায়ন

✍ সফিকুল ইসলাম নাহিদ:

নবীগঞ্জ উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপে পন্ড হল সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী সোনিয়ার বাল্য-বিবাহ। তাৎক্ষণিক প্রশাসনের উপস্থিতি টের পেয়ে বরসহ বরযাত্রীরা বিয়ে বাড়িতে না এসে রাস্তা থেকেই পালিয়ে যায়। রবিবার দুপুরে নবীগঞ্জ উপজেলা আনসার ভিডিপির (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তা আব্দুল আওয়াল ওই স্কুল ছাত্রী বাড়িতে উপস্থিত হয়ে বাল্য বিবাহ বন্ধ করেন।
জানা যায়, রবিবার কালিয়ারভাঙ্গা ইউনিয়নের পুরানগাঁও গ্রামের ছোলেহ আহমদের কন্যা রাজরানি সুভাষিণী উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী সুমাইয়া আক্তার সোনিয়া (১৩) কে জোরপূর্বক একই উপজেলার করগাঁও ইউনিয়নের শেরপুর গ্রামের আব্দুর রহিমের পুত্র ইলিয়াস উদ্দিনের সাথে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে নবীগঞ্জ উপজেলা আনসার ভিডিপির (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তা আব্দুল আওয়াল, স্থানীয় ইউপি সদস্য জয়নাল আবেদীন, আনসার কমান্ডার অহিদ উদ্দিন স্কুল ছাত্রী সোনিয়ার বাড়িতে উপস্থিত হন। প্রশাসনের উপস্থিতি টের পেয়ে বরসহ বরযাত্রীরা বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত না হয়ে রাস্তা থেকেই দ্রুত পালিয়ে যায়। এ সময় প্রশাসনের উপস্থিতিতে সপ্তম শ্রেণীর ছাত্রী সোনিয়া কান্না জড়িত কণ্ঠে বিয়েতে তার মতামত ছিলনা এবং তাকে জোরপূর্বক বিয়ের আসরে বসানো হয়েছে বলে জানায়। পরে সোনিয়ার পিতা ছোলেহ আহমদ ১৮ বৎসর হলে মেয়ে সোনিয়ার বিয়ে দিবেন বলে মুছলেখা দেন।
এ ব্যাপারে নবীগঞ্জ উপজেলা আনসার ভিডিপির (ভারপ্রাপ্ত) কর্মকর্তা আব্দুল আওয়াল বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ও ইউএনও স্যারের পরামর্শে বিয়ে বাড়িতে উপস্থিত হয়ে কনে সোনিয়ার বিয়ের উপযুক্ত বয়স না হওয়ায় আমরা বাল্য বিবাহ বন্ধ করি। তখন কনে সোনিয়া জানায় তাকে জোরপূর্বক তার অমতে বিয়ে দেয়া হচ্ছিল। পরে ১৮ বছর হলে মেয়ের বিয়ে দিবেন বলে অঙ্গীকার করে মুছলেখা দেন সোনিয়ার পিতা ছোলেহ আহমদ।

Last modified on Monday, 02 December 2019 04:45
Login to post comments
  1. LATEST NEWS
  2. Trending
  3. Most Popular